আলোমিতি ২

দুপুর হাঁটছে রোদে
পিঠে আংড়াই
পাইনের পোয়াতি বেলা                      অলস
জাগে চায়ের গেলাস
ভাপ মাখা
চাল ও শ্রম


শিশু রেখে বৃষ্টিও নেমে যায়
ও পথেই
মুখ খোঁজে হাওয়া
উদাস বিন্দির টান
কতদূর হেঁটে গেলে ভোর
আর                      অ            চে            না                      সময়
খুঁজে নিতে                      নাম
লিখি জল ও পাতা


আইটেম নাম্বার ১    

যে চেয়ার ঘুরিয়ে বসলাম                      তাতেও অন্ধফুল                      ফুলে
ফুলতলি আর ইকড়িমিকড়ি                      দাঁত ধুয়ে ধুয়ে কলম লাল
ষাট পাওয়ার জল                      অজলভাসিতে মল্ পার্ক মন্দির
বেড়াচাপা                      দীপিকা বড়টি হয় শাইনী হয়
                     মালকোষে জমে ওঠে এলাটিং বেলাটিং


আইটেম নাম্বার ২

পায়ের সামান্য চলায় দূর কিভাবে বোধ ছুঁয়ে যায়
শূন্যকমলায় একটা ফাঁকা পাইন                      পাঁচিলের ওপারে খেউড়ি
একটা অর্কিড মোড়                      ডায়েরীর একুশ পাতায় ক্রিম
আর সূর্য                      রংচটা মোরগ ডাকলে ডাইভ নীল থামায়
কুয়াশাজলে গোল

এই নিয়ে কবিতা এসে যেতে পারত                      কিন্তু বেঁটে ছাতা
হওয়া হল না                      এমব্রয়ডারীর নক্ শা শিখল না সুজাতা
তাই লাল কাঁকড়া আর জল                      তাই গামছা আর ছাঁকা চুলে
টপ্ টপ্ বাতাস                      বালি মাখতে আবার চাকা