একঝাঁক প্রজাপতি এসেছিল আজ ঘরে। ওরা প্রত্যেকে ডানা থেকে এক এক বিন্দু রং দিয়ে যাচ্ছিল। এক সময় হাত দুটো রঙিন আনন্দে আমাকে নিয়েই ভাসতে শুরু করল। স্পষ্ট শুনলাম ওরা বসন্তের ভাগ পেয়ে উৎসব করতে এসেছে। রঙিন বৃষ্টি নামবে এইবার। ওরা তাই রং মিলান্তি খেলবার ডাক এনেছে। কে মেলাবে রং কার সঙ্গেই বা, আর ঠিক কোন রঙের মিল হবে ভাবতে ভাবতে অসংখ্য ত্রসরেণুর মধ্যে দিয়ে রাজপুত্র আর রাজ কন্যা মায়া নৌকায় ভেসে গেল।



সামনে স্বচ্ছ দেওয়াল
কিছুতেই ভেদ হতে পারছিনা

আঠারো রামধনুর
বিম্বে প্রতিবিম্বে রঙিন হচ্ছি ক্রমশ
এই প্রথম বসন্ত আর আকুল
বর্ষায় ভেজা ও তেতে ওঠা আরেকবার

সময় মাপা হয়নি
ঠিক কতটা  অপচয়

হাতে রইল জাদুদণ্ড
অ-পার বিস্ময়।


বাঁশ ঘিরে দিয়ে গেছে পাড়া
বন্দী বাড়ি গুলো জানে না
পরোয়ানা মৃত্যুদণ্ডের কি না

এপারে কালো দানা মেঘ
প্রতিটি চোখ থেকে মনে
ঘোরে ফেরে

জানি না দেখা হবে
কি হবে না।